| |

দ. কোরিয়ায় মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কার্যকর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, দক্ষিণ কোরিয়ায় তাদের স্থাপিত থাড ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কার্যকর করা হয়েছে।
বিতর্কিত এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এখন উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ঠেকাতে ব্যবহার করা সম্ভব হবে। তবে পুরো কার্যক্ষমতা প্রয়োগে আরো কয়েক মাস লাগে যাবে।

উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলার হুমকিতে কোরীয় উপদ্বীপে সামরিক উত্তেজনা বিরাজ করছে। এই উত্তেজনায় ঘি ঢেলেছে যুক্তরাষ্ট্রের মোতায়েন যুদ্ধজাহাজ ও ডুবোজাহাজ। এখন উত্তর কোরিয়ার আশপাশের দেশ বিশেষ করে জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার মানুষ আতঙ্কে রয়েছে।

উত্তর কোরিয়ার নাগের ডগায় দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের বিশাল সামরিক মহড়ায় আরো ক্ষেপে গিয়ে নতুন করে পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার হুমকি দিয়েছে দেশটি। এ ছাড়া পিয়ংইয়ং অভিযোগ করেছে, যুক্তরাষ্ট্রই পরমাণু যুদ্ধের ঝুঁকিতে ফেলছে।

এদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, বিবদমান পরিস্থিতিতে উত্তরের শাসক কিম জং-উনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারলে নিজেকে সম্মানিত বোধ করবেন। তার এ কথার একদিন পর উত্তর কোরিয়া অভিযোগ করল, যুক্তরাষ্ট্রই পরমাণু যুদ্ধের ঝুঁকি বাড়াচ্ছে।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্র বলেছিল, ২০১৭ সালের শেষ নাগাদ তাদের মোতায়েন থাড ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ব্যবহারোপযোগী হবে। কিন্তু গত সপ্তাহে তারা ঘোষণা দেয়, কয়েক দিনের মধ্যে তা কার্যকর করা হবে। অর্থাৎ আগের ঘোষণা থেকে সরে এসে দ্রুত থাড কার্যকর করল দেশটি।

দক্ষিণ কোরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের থাড মোতায়েন নিয়ে দেশটির জনগণ ব্যাপক বিরোধিতা ও বিক্ষোভ করলেও সরকারের সহযোগিতায় সেয়ংজু কাউন্টিতে পুরোনো গলফ মাঠে এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েন করা হয়।

টার্মিনাল হাই অলটিটিইড এরিয়া ডিফেন্স (থাড) ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কার্যকরে তড়িঘড়ি করার কারণও উত্তর কোরিয়া। দেশটি পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্র হামলা দেওয়ায় পরিস্থিতি মোকাবিলায় এ পদক্ষেপ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

স্থানীয় বাসিন্দাদের আশঙ্কা, উত্তর কোরিয়ার হামলার সম্ভাব্য লক্ষ্যবস্তু হবে যুক্তরাষ্ট্রের এই সামিরক স্থাপনা। ফলে তারা আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে আছে।