| |

বেগুন গাছে টমেটোর চাষ

কাঞ্চন কুমার, কুষ্টিয়া : বিষমুক্ত সবজি চাষি বাবলু কোম্পানী। তার হাতে যেন জাদু রয়েছে। যে ফসল চাষ করেন, সেই ফসলেই আশানুরূপ ফলন পান, লাভ হয় তার।

কখনো লাউ চাষে স্বাবলম্বী, কখনো ফুলকপি বা বাঁধাকপি, কখনো মরিচ, বেগুন বা লিচু কিম্বা কলা চাষ করে সাড়া ফেলে দেন। আবার কখনো নতুন কিছু উদ্ভাবন করে পত্রপত্রিকা, মিডিয়ায় আসেন সফল এ সবজি চাষি। বাবলু কোম্পানী প্রথম পাটের বিকল্প হিসেবে ঢেড়স চাষ করেন। এতে সবজি পান, সঙ্গে ঢেড়স গাছ থেকে পাটের মতো আঁশ। যা দিয়ে তিনি সিকাসহ পাটের আঁশ দিয়ে তৈরি হয়, এমন জিনিস তৈরি করেন।

বলছিলাম কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার ছাতিয়ান ইউনিয়নের সফল সবজি চাষি বাবলু কোম্পানীর কথা।

বাবলু কোম্পানী সকলের থেকে আলাদা। অক্ষরজ্ঞানহীন এ যুবক নিজ জমিতে রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ব্যবহার করেন না। এবার তিনি নতুন কিছু করেছেন। বেগুন গাছে টমেটো গাছ গজিয়ে তাতে টমেটো ধরিয়েছেন। একই জমিতে একই সময়ে দুটি ফসল উৎপাদন করা সম্ভব, তা তিনি দেখিয়েছেন।

বাবলু কোম্পানী চান সকলে বিষমুক্ত সবজি চাষ করুক। এ জন্য তিনি তার জমিতে কোনো রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ব্যবহার করেন না। জমিতে জৈব সার প্রয়োগ করেন। নিম পাতার রস দিয়ে পোকামাকড় তাড়ান। একই জমিতে একই সময়ে একের অধিক সবজি উৎপাদন করার জন্য তিনি বেগুন গাছে টমেটো ধরানোর চেষ্টা করেন।

তিনি বলেন, ‘আমি চার বিঘা জমিতে বেগুন চাষ করেছি। আর ১০ কাঠা জমিতে টমেটো। বেগুন গাছে টমেটো ধরানোর জন্য আমি ১০টি বেগুন গাছে টমেটোর ডোগা কেটে কলম করার মতো করি। সেখানে কিছু দিন পর দেখা যায় টমেটোর ডগাগুলো মারা যায়নি। সেগুলোও বেগুনের ডগার মতো বড় হচ্ছে।’

তিনি জানান, কলম করার মাস খানেক পরে দেখা যায়- বেগুন গাছের টমেটোর ডগায় টমেটো ধরেছে। এতে একটি বেগুন গাছ থেকে টমেটো, আবার বেগুন পাওয়া যাবে।

তিনি আরো জানান, তিনি যে এটা করেছেন, এ কথা জানার পরে বেশ কিছু লোক এসে তাদের বাড়ির ছাদে বেগুন ও টমেটো এক সঙ্গে চাষ করার জন্য চারা নিয়ে গেছেন।

বাবলু কোম্পানী জানান, আগামীতে তিনি বেগুনের জমিতে বেগুন গাছে টমেটোর চাষ করবেন।

এ ব্যাপারে মিরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষ জানান, বাবলু কোম্পানী সফল সবজি চাষি। তিনি এ উপজেলার একজন মডেল চাষি। তিনি এবার তার বেগুনের জমিতে বেগুন গাছে টমেটোর কলম করে চাষ করেছেন। এটা একটি ভালো পদ্ধতি। এর মাধ্যমে অল্প জমিতে অল্প সময়ে অধিক সবজি উৎপাদন করা সম্ভব। বাড়ির ছাদে টবে এগুলো চাষ করা যাবে।